ফাইনালেও উন্নতির ধারায় থাকতে চান মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : চলতি এশিয়া কাপে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের গ্রাফটা ঊর্ধ্বমুখীই আছে। ভারতের কাছে হেরে গ্রুপপর্ব শুরু হলেও আরব আমিরাত ও শ্রীলঙ্কাকে হারানোর পর পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়; উন্নতির ক্রমধারায় তাই ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে টাইগারদের। এবার ফাইনালে আবারও মোকাবিলা করতে হবে সেই ভারতকে। রবিবার সন্ধ্যায় মিরপুর স্টেডিয়ামে হবে এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচটি। এই খেলায়ও আগের তিন ম্যাচের মতো ভালো খেলার ধারা অব্যাহত রাখতে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কনফারেন্স কক্ষে ফাইনাল ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘এটা ফাইনাল, ফ্লেভার তো আলাদা হবেই। তবে আমরা অন্য সব ম্যাচের মতোই দেখছি। নিজেদের সেরাটা খেলতে চাই। গত ৩ ম্যাচে যেভাবে খেলেছি, সেভাবেই খেলতে চাই।’

সেই কাঙ্ক্ষিত পারফরম্যান্সের জন্য অন্য সবদিক বাদ দিয়ে টাইগারদের মনোযোগ এখন শুধুই ম্যাচের দিকে। কোনো চাপকেই তারা আপাতত আমলে নিচ্ছেন না। মাশরাফি বলেন, ‘পেশাদার হিসেবে আমরা পরিকল্পনা করতে পারি, আমাদের উচিত শুধু ম্যাচ নিয়েই ভাবা। আমরা সেটাই চাচ্ছি এবং করছি। ছেলেরা যতটা সম্ভব স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করছে। গ্রাফটা ঊর্ধ্বমুখী মানে এই না যে আমরা বড় দল হয়ে গেছি। আমরা যেভাবে উন্নতি করছি, এ রকম করতে থাকলে আমরা ভালো করতে পারব।’

এই ম্যাচে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে আত্মবিশ্বাসী থাকলেও ভারতকেই ফেভারিট মানছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘ভারত-বাংলাদেশের ফাইনাল ম্যাচে কিন্তু ভারত পরিষ্কার ফেভারিট। এটা সবাই জানে। এখানে আলাদা করে চিন্তা করার সুযোগ নেই। আমরা একটা দল হিসেবে খেলছি। টি২০-তে এখনো আমরা সে রকম ক্রিকেটার গড়ে তুলতে পারিনি যারা একাই ম্যাচ জিতিয়ে দিতে পারে।’

মাঠ, দর্শক, ড্রেসিংরুম সবই বাংলাদেশের পক্ষে। সবকিছু পক্ষে থাকলেই যে দিনটা বাংলাদেশের হবে তেমনটা মনে করেন না টাইগার দলনেতা। তিনি বলেন, ‘গত দুটি ম্যাচ আমরা দল হিসেবে খেলে জিতেছি। এই মুহূর্তে আমাদের দলীয় একতা দারুণ। সেটাকেই রাখতে চাই। আর অবশ্যই দর্শক, মাঠ, ড্রেসিং রুম সব আমাদের পক্ষে এটা খুব ভালো সুযোগ । তবে এটাই শেষ কথা নয়। সবকিছু পক্ষে থাকলেই যে দিন আমাদের হবে, এটার নিশ্চয়তা নেই।’

বাস্তবার মাটিতে দাঁড়িয়েই শিরোপার লড়াইয়ে ভারতকে মোকাবিলা করতে চান মাশরাফি। নিজেদের সেরা পারফরম্যান্স করার ওপরই অখণ্ড মনোযোগ বাংলাদেশের।

মন্তব্য করুনঃ